notunBLOG
Home » প্রযুক্তি » মজিলা ফায়ারফক্সের সর্ববৃহৎ আপডেট

মজিলা ফায়ারফক্সের সর্ববৃহৎ আপডেট

গত ১৫ নভেম্বর মজিলা ফায়ারফক্স তাদের ব্রাউজারের ৫৭তম সংস্করণ ‘Firefox Quantam’ ব্যবহারকারীদের জন্য উন্মুক্ত করে। ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম’কে মজিলা ফায়ারফক্সের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ আপডেট হিসেবে উল্লেখ করেছে মজিলা কর্তৃপক্ষ।

ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম

২০০৪ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে মজিলা ফায়ারফক্স জনপ্রিয়তা অর্জন করতে শুরু করে। কিন্তু ফায়ারফক্সের বিগত দুটি ভার্সন, ভার্সন ৫৬ ও ভার্সন ৫৭ তে কিছু সমস্যা থাকার কারণে গত ২ বছরে অনেক ফায়ারফক্স ব্যবহারকারী ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করা শুরু করেন। পুরোনো ভার্সন দুটিতে মূলত ব্রাউজার ওপেন হতে সময় লাগা, ঘন ঘন ব্রাউজার ক্রেশ করা, ঘন ঘন ট্যাব রিলোড হওয়া, ব্রাউজার রেসপন্ড করা বন্ধ করে দেওয়া প্রভৃতি সমস্যা ছিল প্রধান। এ সকল সমস্যার জন্যই ফায়ারফক্স ব্যবহারকারীরা ক্রোম ব্যবহারে ঝুকে পড়েন। পুরোনো ব্যবহারকারীদের ফেরত আনার লক্ষ্যেই ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম তৈরি করা হয়েছে। তাছাড়া মজিলা’র বড় প্রতিদ্বন্দী গুগলের ক্রোম ব্রাউজারের সাথে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকাও ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম তৈরির আরেকটি উদ্দেশ্য।

এক পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৭ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ১২% ইন্টারনেট ব্রাউজ করেন ফায়ারফক্স ব্রাউজারের মাধ্যমে। যেখানে ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহার করেন প্রায় ৭৫% ইন্টারনেট ব্যবহারকারী। আর এজ ব্রাউজার ব্যবহার করেন প্রায় ৪% ইন্টারনেট ব্যবহারকারী আর সাফারি ব্রাউজার ব্যবহার করেন প্রায় ৭% ব্যবহারকারী। তাহলে নিশ্চয় বুঝতে পারছেন যে ফায়ারফক্স হল বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ব্যবহৃত ব্রাউজার, যার ফলে ক্রোমের সাথে ফায়ারফক্সের প্রতিযোগিতা খুবই জোরালো।

ফায়ারফক্সের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মজিলা’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট বলেন,”ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম হল ফায়ারফক্স ভার্সন ৫২ এর দ্বিগুণ গতি সম্পন্ন।

এমনকি এটি গুগল ক্রোমের বেশি গতিসম্পন্ন। কোয়ান্টাম তৈরির সাফল্য আমাদের আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে গেছে। পারফমেন্সের সাথে তুলনা করলে এবারের সাফল্য বিগত বছরগুলোর তুলনায় অধিক।

ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম এ যা থাকছে

ফায়ারফক্সের নতুন এ সংস্করণে দেখা মিলবে বেশ কিছু নতুন ফিচারের। আসুন জেনে নিই এগুলো কি কি –

  1. New look & design
  2. Better security
  3. Less memory cost
  4. Build in tool to take screenshots
  5. VR compatibility
  6. Gaming compatibility
  7. Default search engine

New look & design

কোয়ান্টাম ব্রাউজারে দেখা মিলবে নতুন এক ফায়ারফক্সের। সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইনে তৈরি করা হয়েছে কোয়ান্টাম ব্রাউজারকে।

ফায়ারফক্সের পুরাতন সংস্করণগুলোর সাথে নতুন এ সংস্করণের তেমন মিল নেই বললেই চলে। নতুন ডিজাইনের কোয়ান্টাম ব্রাউজার ইতিমধ্যে ব্যবহারকারীদের মন জয় করতে শুরু করেছে।

Better security

নতুন এ ব্রাউজার নির্মাণে ব্যবহারকারীর নিরাপত্তার কথাটি সবচেয়ে গুরুত্বের সাথে দেখা হয়েছে। এ ব্রাউজারে Sandboxing ফিচারটি আরও গুরুত্বের সাথে যুক্ত করা হয়েছে যাতে আপনি কোনো ওয়েবসাইট এ গেলে সে ওয়েবসাইট এর নিরাপত্তা নিয়ে দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকতে পারেন। পুরাতন সংস্করণগুলোতে সেন্ডবক্সিং ফিচারটি থাকলেও নতুন এ সংস্করণে এ ফিচারটি আরও উন্নত করা হয়েছে যাতে আপনি নিশ্চিন্তে ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে পারেন।

Less memory cost

ফায়ারফক্সের পুরাতন সংস্করণগুলোর তুলনায় কোয়ান্টাম খুব কম মেমোরি বা র‍্যাম স্পেস ব্যবহার করে। মজিলা কর্তৃপক্ষের মতে, কোয়ান্টাম ব্রাউজার গুগল ক্রোমের তুলনায় ৩০ শতাংশ কম র‍্যাম স্পেস ব্যবহার করে।

Build in tool to take screenshots

নতুন এ সংস্করণে ওয়েবপেইজের স্ক্রিনশট নেওয়ার জন্য বিল্ড ইন টুল যুক্ত করা হয়েছে।

এর মাধ্যমে আপনি সহজেই কোনো ওয়েবপেইজের স্ক্রিনশট নিতে পারবেন।

VR compatibility

নতুন ফায়ারফক্সে থাকছে বিল্ট ইন VR Compatibility বা Virtual Reality Compatibility। এটি ফায়ারফক্সের একদম নতুন একটি ফিচার। এর ফলে ব্যবহারকারীরা ব্রাউজারে আলাদা কোনো প্লাগিন বা এক্সটেনশন ইনস্টল করা ছাড়াই ঐ সকল ওয়েবসাইট ভিউ করতে পারবেন যে সকল ওয়েবসাইটে ভিআর কন্টেন্ট রয়েছে। এছাড়া এ ফিচারের কারণে ব্যবহারকারীরা HTC Vive এর মত ভিআর হেডসেট গুলোর পূর্ণ সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন।

Gaming compatibility

কোয়ান্টাম ব্রাউজারে থাকছে বিল্ট ইন Gaming compatibility। এ ফিচারটিও ফায়ারফক্সের ব্রাউজারে এই প্রথম যুক্ত করা হয়েছে। ইন্টারনেটে এমন অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে ব্যবহারকারীরা কোনো প্রোগ্রাম ইনস্টল না করেই শুধুমাত্র ব্রাউজারের ওয়েবপেইজে গেইম খেলতে পারেন। এ রকম ওয়েবসাইট ও ব্যবহারকারীদের কথা চিন্তা করেই কোয়ান্টামে নতুন এ ফিচার যুক্ত করা হয়েছে।

Default search engine

ফায়ারফক্সের নতুন সংস্করণে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগল কে নির্ধারণ করেছে মজিলা। এটি কিছুটা বিস্ময়কর কেননা ফায়ারফক্সের পুরোনো সংস্করণগুলোতে গুগল, ইয়াহু, বিং এ সকল সার্চ ইঞ্জিনগুলো ব্যবহৃত হত। তবে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে ইয়াহু নির্ধারণ করা ছিল ফায়ারফক্সের পুরোনো সংস্করণগুলোতে। কিন্তু কোয়ান্টাম ব্রাউজারের জন্য গুগল কে ডিফল্ট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে বেছে নিয়েছে মজিলা।

সব মিলিয়ে বলতে গেলে, ফায়ারফক্স কোয়ান্টাম অবশ্যই মজিলা কে সর্বোচ্চ ব্যবহৃত ব্রাউজারের প্রতিযোগিতায় অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে। তবে কোয়ান্টাম ব্রাউজার এখনো পর্যন্ত শুধুমাত্র Windows, Mac ও Linux এর জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। Android, Windows Phone ও IOS এর জন্য কোয়ান্টাম কবে নাগাদ উন্মুক্ত করা হবে সে ব্যাপারে কিছু জানা যায় নি।

১ টি মন্তব্য

সংযুক্ত থাকুন​

সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে আমাদের সাথে যুক্ত হয়ে সকল আপডেট গুলো সবার আগে পান!

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.