৭ টি ভুল যা একজন WordPress ব্যবহারকারীর করা উচিত নয়

WordPress এমন একটি মঞ্চ যেখানে বেশিরভাগ মানুষ তার প্রথম ওয়েবসাইট তৈরি করে। যেকারনে বেশিরভাগ মানুষ WordPress এর মৌলিক বিষয়গুলোতেই ভুল করে বসে।

এই আর্টিকেলে আমি এমন কিছু ভুল তুলে ধরবো যা প্রাথমিক পর্যায়ে বেশির ভাগ মানুষ করে থাকে।

Advertisement

“WordPress” নামক সাবফোল্ডারে WordPress ইন্সটল করা

ওয়ার্ডপ্রেস  Zip ফাইলটি “ওয়ার্ডপ্রেস” নামে একটি ফোল্ডারে অবস্থিত সমস্ত কোর ফাইলগুলিকে রাখে। নতুরা যে ভুলটা করে তা হলো,  তারা রুট ডাইরেক্টরি তে ফাইলটি আপলোড না করে নতুন “WordPress” ডাইরেক্টরি খুলে তাতে Unzip করে যা একটি বোকামি। ফলস্বরূপ, তাদের ওয়েবসাইটের Url http://yourweb.com না হয়ে হয়  http://yourweb.com/WordPress 

Permalinks ব্যবহারে ভুল করা

Default Permalinks দেখতে অনেকটা WordPress is /?p=<postid> এর মত। এই structure টি আপনার ওয়েবসাইটের url দেখায় www.yourwebsite.com/?p=57 এরূপ। অথচ এর থেকে ভাল structure ব্যবহার করা সম্ভব হয় যেমনঃ www.yourwebsite.com/big-news/.

নতুন ব্যবহারকারীরা অনেক সময় এ বিষয়টিতে খেয়াল করে না অথচ এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

Advertisement

অসম্পূর্ণ পেইজকে প্রকাশ করা

নতুন যারা, তাদের কোন কাজ সম্পন্ন হওয়ার পূর্বেই সেটি প্রকাশ করে দেয় ফলস্বরূপ নতুন কোন ভিজিটর যখন সেই পেইজে ভিজিট করে তখন সেখানে অসম্পূর্ণ ফল দেখে, পরবর্তীতে সে ওয়েবসাইটের প্রতি আর আগ্রহী হয় না। এই ভুলটি কারণে পাঠকরা বুঝতে পারে যে আপনি আপনার ওয়েব সাইটটি নিয়ে ততটা আগ্রহী নন।

অথচ নিয়ম হলো কোন পেইজ বা পোস্ট প্রকাশ করার পূর্বে সেটি সম্পূর্ণ করা। আমি আপনাকে বলব যতক্ষণ পর্যন্ত আপনার ওয়েব সাইটের সকল কাজ শেষ হচ্ছে তার আগে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি লঞ্চ করবেন না।

অপ্রয়োজনীয় প্লাগিন ব্যবহার করা

একটি ওয়েবসাইটের জন্য plugin খুবই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু অতিমাত্রায় প্লাগিন ইন্সটল করা হলে এটি যেমন আপনার ওয়েবসাইটের পারফরমেন্সের উপর এর প্রভাব ফেলবে তেমনি আপনার ওয়েবসাইটে স্লো করে ফেলবে। অতএব যে প্লাগিনগুলো আপনি ব্যবহার করছেন না সেই প্লাগিনগুলো অতিসত্বর ডিএক্টিভেট করুন এবং ডিলিট করে দিন।

Advertisement

WordPress কে আপডেটেড না রাখা

আপনার wordpress কে প্রতিনিয়ত আপডেট রাখা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এ পর্যন্ত যতগুলো ওয়েবসাইট হ্যাক হয়েছে তার পেছনে কারণ হচ্ছে তাদের ওয়ার্ডপ্রেসকে তারা update করেনি। wordpress আপনাকে সবসময় তাদের নতুন ভার্সন ব্যবহার করার জন্য নির্দেশ দেয়।

শক্তিশালী পাসোয়ার্ড ব্যবহার না করা

বেশিরভাগ ওয়েবসাইট হ্যাক হওয়ার পেছনে সবচেয়ে বড় কারণ হলো শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার না করা। যেখানে আপনার ওয়েব সাইটের সিকিউরিটি নিয়ে প্রশ্ন আসে সেখানে অবশ্যই আপনাকে খুবই শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে।

ভুল
Password Generator

আপনি চাইলে passwords generator ব্যবহার করে একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করতে পারেন।

Advertisement

প্রতিনিয়ত ওয়েবসাইটের ব্যাকআপ না নেওয়া

বেশিরভাগ wordpress ব্যবহারকারীরাই জানে না ওয়েবসাইটের ব্যাকআপ জিনিসটি কতটা গুরুত্বপূর্ণ। বেশিরভাগ ব্যবহারকারীরাই এই ভুলটি করে থাকেন যার কারণে ওয়েবসাইট হ্যাক হলে তারা তাদের গুরুত্বপূর্ন সকল পোস্ট অথবা তথ্য উদ্ধার করতে পারেন না।  কিছু প্লাগিন ব্যবহার মাধ্যমেই আপনি আপনার ওয়েব সাইটের খুব সহজেই ব্যাকআপ নিয়ে ফেলতে পারেন।

শেষমেষ

আপনার কি মনে হয় নতুন ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার কারীরা আরো বেশি ভুল করে?  যদি জেনে থাকেন তাহলে অবশ্যই আমাকে মন্তব্যতে জানাবেন।

Advertisement
Advertisement

One thought on “৭ টি ভুল যা একজন WordPress ব্যবহারকারীর করা উচিত নয়

  1. Hello there ,
    I am sorry I do not speak Bangla but I think I can help your users.
    I was using the password generator tool you mentioned on your page here: notunblog.com/৭-টি-ভুল-যা-একজন-wordpress-ব্যবহারক/
    While it does the job overall, I found another tool to be a better alternative (and it’s actually in Bangla). I thought other users might also appreciate it if you update your page.
    I guess I’m not the only one who prefer a simple and ad free password generator tool : )
    http://www.vpnmentor.com/tools/secure-password-generator/
    In hope I helped back,
    Rachel

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।